বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর, 2০২2
সালাহ্ উদ্দিন শোয়েব চৌধুরী
Published : Sunday, 21 August, 2022 at 5:38 PM
কূটনীতি মানে কুটনামি নয়

কূটনীতি মানে কুটনামি নয়

কূট শব্দ বলতেই আমরা সাধারণত দুটো অর্থ বুঝি, বদ কিংবা জটিল। কূটনীতি শব্দের অর্থ জটিলনীতি। একাজটা ভীষন স্পর্শকাতর। একটা শব্দের হেরফের হলেই এক দেশের সাথে অন্য দেশের যুদ্ধ বেঁধে যায়। কাজটা কেবল জটিলই নয় এটা রীতিমত ঝুঁকিপূর্ন। একারণেই বিশ্বের বুদ্ধিমান দেশগুলো সেরা বিচক্ষণ লোকদের একাজে নিয়োগ দেয়। কূটনীতি অবশ্যই গোপাল ভাঁড়দের কম্ম নয়। কথাগুলো বললাম আমার দীর্ঘ অভিজ্ঞতা থেকে। অনেকেই হয়তো জানেন না আমি দু-দুটো দেশের রাষ্ট্রপ্রধানের মিডিয়া বিশেজ্ঞ হিসেবে প্রায় নয় বছর দায়িত্ব পালন করেছি। ওই সময়টায় মিডিয়ার পাশাপাশি কুটনৈতিক অনেক কিছুও আমাকে দেখতে হয়েছে। বিশ্বের বহু ঝাঁনু কূটনীতিকদের সান্নিধ্যে যাওয়ার সৌভাগ্য হয়েছে আমার। এখনও তো সাংবাদিকতার পাশাপাশি আমাকে নানা দেশের কূটনীতিকদের সাথে মিশতে হয়, নানা বিষয়ে মতবিনিময়ও করতে হয়। পেশাগত কারণেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশ থেকে শুরু করে জার্মান চ্যান্সেলর এঞ্জেলা মার্কেট, ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং, জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী কণ্ডলিৎসা রাইস থেকে শুরু করে মোনাকো'র শাসক প্রিন্স এলবার্ট, উত্তর কোরিয়ার সাবেক শাসক কিম জং ইল (কিম জং উন এর বাবা), পাকিস্তানের সাবেক প্রেসিডেন্ট জেনারেল পারভেজ মোশাররফদের মতো ব্যাক্তিত্বদের সাথে পাশাপাশি বসে আলাপচারিতার সুযোগ হয়েছে আমার। এঁদের প্রত্যেকের ক্ষেত্রেই দেখেছি একটা শব্দ মুখ থেকে বের করার আগে তাঁরা কতোটা সতর্কতা অবলম্বন করতেন। কারণ ওনারা জানতেন, আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে কথা বলার যেমন সুফল আছে, ঠিক তেমনিভাবে বেফাঁস কথা বলার মারাত্মক খেসারতও আছে।

আমরা আফ্রিকা মহাদেশের সামরিক স্বৈরশাসক ইদি আমিনের কথা জানি। কিউবার ফিদেল ক্যাস্ট্রো কিংবা দক্ষিণ আফ্রিকার নেলসন ম্যান্ডেলা - এঁদের সবার বিষয়ে কমবেশী জানি। ইদি আমিন তাঁর বেফাঁস কথাবার্তার কারণে আজ অব্দি অনেকের কাছেই বিতর্কের কিংবা হাসির পাত্র। প্রায় একইভাবে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি ওনার নানা ধরনের বেফাঁস কথার কারণেই পলিটিক্যাল কমেডিয়ান কিংবা রাজনৈতিক ভাঁড় হিসেবে বিবেচিত হয়ে থাকেন নানা মহলে। সাম্প্রতিক সময়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনও ভুলভাল কিংবা বেফাঁস কথার কারণে তাঁর নিজ দলের অনেক নেতার কাছেও নিজের গ্রহণযোগ্যতা হারাচ্ছেন ক্রমাগত।


একজন মন্ত্রী যখন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মতো খুবই স্পর্শকাতর জায়গার দায়িত্ব পান তখন তাঁকে ঝানু সব কূটনীতিকের সাথেই চলতে হয়, নানা বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে হয়, দিক নির্দেশনা দিতে হয়। কিন্তু ওই মন্ত্রী যদি কূটনীতি না বোঝেন, কূটনীতির ভাষা সম্পর্কে অজ্ঞ থাকেন তাহলে শুধু ওনার কারণেই দেশের জন্যে নানা ধরনের ঝক্কি ঝামেলার সূত্রপাত হতে পারে। তাঁর অজ্ঞতার কারণে রাষ্ট্রকে অনেক বড় খেসারত দিতে হতে পারে। বিশ্ব দরবারে রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি নষ্ট হতে পারে।

যানবাহন হোক, উড়োজাহাজ হোক কিংবা নদী বা সমুদ্রে চলা লঞ্চ-জাহাজ হোক, সবকিছু চালাতে হলে আগে এটা শিখতে হয়। কোনোকিছু না শিখেই যদি কেউ ড্রাইভার, পাইলট কিংবা ক্যাপ্টেনের দায়িত্বে বসে পড়ে তাহলে পরিণামটা কি হতে পারে এরা বোঝার জন্যে বিশেষজ্ঞ হওয়ার দরকার পড়েনা।

অকারণেই এতো কথা লিখলাম। অলস সময়ে হাতের আঙ্গুলগুলো নিসপিস করেছিলো আই প্যাডের বুকে টোকাটুকি করতে। আর ওই টোকাটুকি পরিণামে এই অহেতুক প্যাঁচাল। লেখাটা কাউকে উদ্দেশ্য করে নয়, কারো কথা মগজে ধারণ করে নয়। মূল্যবান সময় নষ্ট করে এতোক্ষণ যারা এই অহেতুক কথাগুলো পড়লেন, তাঁদের সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা।


সালাহ্ উদ্দিন শোয়েব চৌধুরী:
সিনিয়ার সাংবাদিক, গবেষক, লেখক, জঙ্গীবাদ বিশেষজ্ঞ, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব ও ইংরেজী পত্রিকা ব্লিটজ সম্পাদক


পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত


DMCA.com Protection Status
সম্পাদক ও প্রকাশক: নাজমুল হক শ্যামল
দৈনিক নতুন সময়, ২৫/১ পল্লবী, মিরপুর ১২, ঢাকা- ১২১৬
ফোন: ৫৮৩১২৮৮৮, ০১৯৯৪ ৬৬৬০৮৯, ইমেইল: [email protected]
Developed & Maintainance by i2soft