ই-পেপার সোমবার ১৪ নভেম্বর ২০২২
সদস্য হোন |  আমাদের জানুন |  পডকাস্ট |  গুগলী |  ডিসকাউন্ট শপ
সোমবার ৩০ জানুয়ারি ২০২৩ ১৬ মাঘ ১৪২৯
স্ত্রী ভীষণ সন্দেহবাতিক, সারাক্ষণ আমার মোবাইল চেক করে, বোনদের সঙ্গে কথা বললেও অশান্তি
নতুন সময় ডেস্ক
প্রকাশ: Thursday, 12 January, 2023, 2:11 PM

স্ত্রী ভীষণ সন্দেহবাতিক, সারাক্ষণ আমার মোবাইল চেক করে, বোনদের সঙ্গে কথা বললেও অশান্তি

স্ত্রী ভীষণ সন্দেহবাতিক, সারাক্ষণ আমার মোবাইল চেক করে, বোনদের সঙ্গে কথা বললেও অশান্তি

এই ব্যক্তির তাঁর স্ত্রীর সঙ্গে লাভ ম্যারেজ। কিন্তু হানিমুন থেকে ফেরার পরেই স্ত্রী বদলে যান। উঠতে বসতে সন্দেহ করেন স্বামীকে। অভিযোগ এমনই। কী করবেন সেই ব্যক্তি? বিশেষজ্ঞের পরামর্শ কী।
 
Over Possessiveness in Relationship:

সম্পর্কে একে অপরের উপর ভরসা এবং বিশ্বাস না থাকলে তা এগিয়ে নিয়ে যাওয়া খুব মুশকিল। এই কথা আমি বারবার হাড়েহাড়ে টের পাচ্ছি। আমি একজন বিবাহিত পুরুষ। কিন্তু জীবনে কোনও সুখ নেই। সারাদিন স্ত্রীর অশান্তিতে আমার মাথা প্রায় খারাপ হয়ে যাচ্ছে। মনও ভেঙে যাচ্ছে। আমি যদিও জীবনটা এভাবে দেখতে চাইনি। আমি চেয়েছিলাম স্ত্রীর সঙ্গে খুব ভালো করে সময় কাটাব।


আমি জানি প্রত্যেক দম্পতির মধ্য়েই কোনও না কোনও ঝগড়া-অশান্তি হয়। সেটা স্বাভাবিক। কিন্তু আমার স্ত্রীর সঙ্গে সমস্যাটা একদম অন্যরকম। ও কোনও মহিলার সঙ্গেই আমায় কথা বলতে দিতে চায় না। আমায় খুব বাজে বাজে কথা শোনায়। আর ভালো লাগছে না। আজ বাধ্য হয়ে আমি সব কথা বিশেষজ্ঞের কাছে লিখে পাঠাচ্ছি। আমায় অনুগ্রহ করে সাহায্য করুন। পরামর্শ দিন।

ওর সব কিছু নিয়েই সমস্যা

আমার স্ত্রীর সঙ্গে বিয়ের আগে থেকে প্রেম। বেশ কয়েক বছরের সম্পর্ক। ৪ বছর আমরা একসঙ্গে ছিলাম। এরপর আমরা বিয়ের সিদ্ধান্ত নিই। হানিমুনে গিয়েছিলাম। বেড়িয়ে ফেরার পরেই আমার স্ত্রীর সম্পূর্ণ বদলে যান। আমি প্রথম প্রথম বিষয়টি স্বাভাবিকভাবেই নিয়েছিলাম।

কিন্তু পরে দেখলাম যে এটাই প্রধান সমস্যা হয়ে উঠেছে। আমায় ওয়েডিং ব্যান্ড না পরে বেরোতে দেয় না ও। এমনকী আমি সারা দিন কী করছি না করছি, সব কিছুই খেয়াল রাখে। সব কিছুর উপর ওর নজর থাকে। মাঝেমধ্যে নিজেকে বন্দি মনে হয়।

সব কিছু নিয়ে অশান্তি

আমি কাকে ফোন করছি, আমায় কে ফোন করেছেন, সব কিছুর উপর আমার স্ত্রীর নজর থাকে। আমায় সব প্রশ্নের উত্তর দিতে হয় তাকে। যদি আমার মহিলা বসও আমায় ফোন করেন, তাহলেও ও আমায় প্রশ্ন করতেই থাকে। বসকে কেমন দেখতে, সেসবও জানতে চায়। আমি ওর অবর্তমানে নিজের তুতোবোনদের সঙ্গেও কথা বলতে পারি না।

যদি আমাদের সঙ্গে কোনও মহিলা বন্ধুর দেখা হয়ে যায়, ও আমার হোয়াটসঅ্যাপ চেক করতে শুরু করে দেয়। কত ঘন ঘন আমাদের কথা হয়, এসব কিছু চেক করতেই থাকে। প্রত্যেকটা পদক্ষেপের উপর ওর কড়া নজর থাকে। আমার খুব অপমানিত বোধ হয়। দমবন্ধ লাগে। ও সবকিছুর মাত্রা ছাড়িয়ে গিয়েছে। এবার কি আমি এই সম্পর্কটি ভেঙে দেব?

বিশেষজ্ঞের পরামর্শ

পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসক মালিহা হাশম সেবল। দুজন মানুষের মধ্য়ে সম্পর্ক তৈরি হয়। তাই সেখানে দুজন মানুষের এফর্টই গুরুত্বপূর্ণ। দুজনের মধ্য়ে বোঝাপড়া থাকাও প্রয়োজন। অনেক চড়াইউতরাই পেরিয়ে এই জায়গায় আসতে হয়। একই সময়ে দুজনকেই দুজনকে বুঝতে হবে। যেমন করে আপনি ভাবছেন, স্ত্রীও একই কথা ভাবছেন কিনা, তা বোঝা প্রয়োজন।

একজন পুরুষ হয়তো মনে করেন, তাঁর জীবনে কোনও সীমারেখা থাকতে পারে না। তাঁর মনের মতো তিনি বাঁচতে পারেন। কোনওদিকে চিন্তা না করেই তিনি নিজের মতো কাজ করতে পারেন। কিন্তু বাস্তবে তা নাও হতে পারে। যখন আমরা একটি সম্পর্কের কথা বলি, আমরা দুজন মানুষের কথা বলি। যেখানে একজন আরও একজনের উপর নির্ভরশীল। মানসিকভাবে তাঁদের একে অপরের প্রতি নির্ভরশীলতা আছে। সেটা কি গুরুত্বপূর্ণ নয়?

আপনার স্ত্রীর মানসিক অবস্থা কেমন


আপনার স্ত্রী একটি মেন্টাল ট্রমার মধ্য় দিয়ে যাচ্ছেন। হয়তো তিনি পুরনো কোনও স্মৃতির কথা মনে করে এই কাজটি করছেন। তাঁর কাছে ‘বিবাহের’ কোনও খারাপ স্মৃতি আছে। নিজের বাবা-মা’কে দেখেও এই ভয় তৈরি হতে পারে। এখানে না স্বামীর কোনও দোষ আছে, স্ত্রীরও কিন্তু কোনও দোষ নেই।

পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতিই এমন যে, আপনার প্রায় হাত-পা বাঁধা। তাই একে অপরের সঙ্গে ঝগড়া করে সম্পর্কটি খারাপ করে কোনও লাভ নেই। আপনাকেই পদক্ষেপ করতে হবে।

তাঁর সঙ্গে কথা বলুন

কোনও কিছুই জটিল নয়। যদি আমরা সেই পরিস্থিতিকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারি। আমি এরকম অনেক কেসই দেখেছি, যা পরবর্তীতে সমাধান করা সম্ভব হয়েছে। তার এক এবং অন্যতম পথ হল, কমিউনিকেশন। তাই একে অপরের সঙ্গে এই বিষয়ে কথা বলা খুব প্রয়োজন। নাহলে সমস্যা অনেক জটিল হতে পারে। আপনি তাঁকে কম্ফোর্ট দিন। যাতে তিনি ধীরে ধীরে সব কথাই আপনাকে খুলে বলতে পারেন। তাঁর ভয়ের কারণের কথা জানাতে পারেন। তাঁর সঙ্গে মুখোমুখি বসে কথা বলুন। তাহলে তিনি বুঝতে পারবেন। কথা বলার থেকে কোনও ভালো থেরাপি হয় না। আপনি সেটাই করুন এবং তারপর ম্যাজিক দেখুন।

যদি নিজেরা না পারেন, তবে অবশ্যই বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।

পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: নাজমুল হক শ্যামল
দৈনিক নতুন সময়, ২৫/১ পল্লবী, মিরপুর ১২, ঢাকা- ১২১৬
ফোন: ৫৮৩১২৮৮৮, ০১৯৯৪ ৬৬৬০৮৯, ইমেইল: newsnotunsomoy@gmail.com
কপিরাইট © দৈনিক নতুন সময় সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | Developed By: i2soft
DMCA.com Protection Status