বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর, 2০২2
নতুন সময় ডেস্ক
Published : Thursday, 22 September, 2022 at 11:34 AM
রাশিয়ার সেনা সমাবেশে যাদের ডাকা হবে

রাশিয়ার সেনা সমাবেশে যাদের ডাকা হবে

রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু জানিয়েছেন, এই সেনা সমাবেশের ঘটনা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদের জন্য প্রযোজ্য হবে না, এমনকি নতুন নিয়োগপ্রাপ্তদের জন্যও নয়। শুধু যারা সামরিক বাহিনীতে কাজ করেছেন, তাদেরই ডাকা হবে।

ইউক্রেনে সামরিক অভিযানকে কেন্দ্র করে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ঘোষিত আংশিক সেনা সমাবেশের বিস্তারিত জানিয়েছে ক্রেমলিন।

রাশিয়া টুডের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বুধবারই প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু দেশব্যাপী সংঘবদ্ধতার অধীনে তিন লাখ রিজার্ভ সেনা ডাকার কথা জানিয়েছেন।

শোইগু জানিয়েছেন, এই সেনা সমাবেশের ঘটনা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদের জন্য প্রযোজ্য হবে না, এমনকি নতুন নিয়োগপ্রাপ্তদের জন্যও নয়। শুধু যারা সামরিক বাহিনীতে কাজ করেছেন, তাদেরই ডাকা হবে।

যাদের ডাকা হবে তাদের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এরা এমন লোক নয়, যারা সেনাবাহিনী সম্পর্কে কিছু শোনেনি, এরা তারাই যারা সামরিক বাহিনীতে চাকরি শেষ করেছে, যাদের সামরিক বিশেষত্ব আছে... এবং সামরিক অভিজ্ঞতাও রয়েছে।’

তিনি দাবি করেন, রাশিয়ার ২ কোটি ৫০ লাখ সেনা সমাবেশের সক্ষমতা রয়েছে। সেই হিসাবে যে সেনা সমাবেশ করার কথা বলা হয়েছে তা সক্ষমতার ১ শতাংশের কিছু বেশি।

এর আগে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন দেশটিতে আংশিক সমন্বিত সামরিক প্রস্তুতি ঘোষণা করেছেন।

রেকর্ডকৃত এক টেলিভিশন ভাষণে আংশিক সামরিক সংহতি ঘোষণা দেয়ার সময় পুতিন অভিযোগ করে বলেন, পশ্চিমারা রাশিয়াকে ধ্বংস করতে চায় এবং এ জন্য ইউক্রেনের জনগণকে তারা কামানের খোসায় পরিণত করার চেষ্টা করছে।

মাতৃভূমি রক্ষায় এই আংশিক সেনা সমাবেশ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুতিন।

এ সময় তিনি রাশিয়ার সঙ্গে প্রক্সি যুদ্ধ শুরু করার জন্য পশ্চিমা দেশগুলোর প্রতি দায় দিয়েছেন।

পুতিন বলেন, ‘যদি আমাদের দেশের আঞ্চলিক অখণ্ডতা হুমকির সম্মুখীন হয়, রাশিয়া এবং আমাদের জনগণকে রক্ষা করার জন্য, আমরা আমাদের হাতে থাকা সব উপায় ব্যবহার করব। এটি কোনো ফাঁকা বুলি নয়।

‘যারা পারমাণবিক অস্ত্র দিয়ে আমাদের ব্ল্যাকমেইল করার চেষ্টা করে তাদের জানা উচিত যে বিরাজমান বাতাস তাদের দিকে ঘুরতে পারে।’

পুতিন ঘোষণায় জানিয়েছেন, রাশিয়ার অস্ত্র উৎপাদন বাড়ানোর জন্য তিনি অর্থায়ন বাড়ানোর নির্দেশ দিয়েছেন।

বুধবার থেকেই আংশিক সমন্বিত সামরিক প্রস্তুতির কার্যক্রম শুরু হবে।

এর মানে হচ্ছে, রুশ ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান ও নাগরিকদের যুদ্ধ প্রচেষ্টায় আরও অবদান রাখতে হবে। রিজার্ভ সেনাদের প্রয়োজনে ডাকা হতে পারে।

যেহেতু রাশিয়ার নিরাপত্তা হুমকিতে, সে ক্ষেত্রে এ ঘোষণার আলোকে পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহারও করতে পারে রুশ সেনারা।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের ঘোষণা এমন সময় এলো যখন দনবাস অঞ্চলের রুশ স্বীকৃত কর্তৃপক্ষ চলতি মাসেই রাশিয়ার সঙ্গে যুক্ত হতে গণভোটের আয়োজন করতে যাচ্ছে।

এর আগে সাংহাই সহযোগিতা সংস্থায় যোগদানকালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে পুতিন বলেছিলেন, দ্রুত যুদ্ধ শেষ করতে চান তিনি।

ক্রেমলিনের দাবি, নিরপেক্ষ রাষ্ট্র হিসেবে ভূমিকা পালনের ইস্যুতে আলোচনা থেকে বেরিয়ে গেছে কিয়েভই।



পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত


DMCA.com Protection Status
সম্পাদক ও প্রকাশক: নাজমুল হক শ্যামল
দৈনিক নতুন সময়, ২৫/১ পল্লবী, মিরপুর ১২, ঢাকা- ১২১৬
ফোন: ৫৮৩১২৮৮৮, ০১৯৯৪ ৬৬৬০৮৯, ইমেইল: [email protected]
Developed & Maintainance by i2soft