ই-পেপার সোমবার ১৪ নভেম্বর ২০২২
ই-পেপার |  সদস্য হোন |  পডকাস্ট |  গুগলী |  ডিসকাউন্ট শপ
শুক্রবার ২৪ মে ২০২৪ ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
বাঁশখালীতে পানি নিষ্কাশনে প্রতিবন্ধকতায় জলাবদ্ধতা
জসীম উদ্দীন,বাঁশখালী
প্রকাশ: Tuesday, 14 May, 2024, 6:46 PM

বাঁশখালীতে পানি নিষ্কাশনে প্রতিবন্ধকতায় জলাবদ্ধতা

বাঁশখালীতে পানি নিষ্কাশনে প্রতিবন্ধকতায় জলাবদ্ধতা

বাঁশখালী'র সরল ইউনিয়নে পানি নিষ্কাশনে প্রতিবন্ধকতায় জলাবদ্ধতা। এই জলাবদ্ধতা থেকে চলাচলের ব্যাপক সমস্যা সহ সৃষ্টি হচ্ছে বহুমুখী জনদুর্ভোগ। এমনই একটি দৃশ্য দেখা যায় চট্টগ্রাম বাঁশখালী উপজেলার সরল ইউনিয়ন ৬নং ওয়ার্ড মিনঝিরতলা বয়নাকাঁটা চাঁদমিয়া বাজার নামীয় স্থানে। এই রাস্তা দিয়ে
স্কুল, কলেজ,মাদ্রাসা, মসজিদের মুসল্লী সহ প্রতিদিন ৫ হাজার মানুষ চলাচল করে বলে জানায় স্থানীয় ভুক্তভোগীরা। এখানে যে পানি গুলো জমে আছে এগুলো আজ থেকে প্রায় এক সাপ্তাহ ধরে। প্রথম কালবৈশাখী'র বৃষ্টি শুরু থেকে এই জনদর্ভোগ সৃষ্টি হয় যার কারণ  হচ্ছে এই রাস্তার নিচে একটা কালবার্ট ও একটা খাল রয়েছে রাতারাতি এসব কিছু ভরাট করে স্থানীয় প্রভাবশালী রাসেল চৌধুরী নামক এক লোকে কালবার্ট ও খাল ভরাট করে দোকান তৈরী করতেছে।

স্থানীয় লোকজন জানায়, এখনো বর্ষা শুরু হয়নি মাত্র হাল্কা কালবৈশাখী হল এই অবস্থায় যদি এতদিন পানি জমে থাকে কিংবা পানি নিষ্কাশন না হয় তাহলে বর্ষার ভরা মৌসুমে আমরা এখানে বসবাস করতে পারবো না।

অন্য দিকে এখানের পানি গুলো দূষিত হয়ে বিভিন্ন রোগ সৃষ্টি হতে পারে। এই পানি গুলো বর্তমানে নষ্ট হয়ে বিশ্রী দুর্গন্ধ অনুভব হচ্ছে।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, শতবর্ষী ঐতিহ্যবাহী খাল ভরাট করে মার্কেট তৈরী করা হচ্ছে, এবং নামে মাত্র পানি নিষ্কাশনের জন্য রাখা ছোট একটা কালবার্ট ও বন্ধ করে দিয়েছে।
তবে অভিযুক্ত রাসেল চৌধুরীকে ঘটনাস্থলে না পেয়ে তার মুঠোফোনে একাদিক বার কল দিলে ও তিনি রিসিভ করে নাই।

স্থানীয় ভুক্তভোগীরা এখন যেমন তেমন বর্ষার মৌসুম শুরু হলে এই রাস্তা দিয়ে চলাচল বন্ধ হয়ে যাবে। খুব দ্রুত পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করার জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি জোর দাবি জানাচ্ছি।

সাধারণ পথচারীরা বলেন, আজ থেকে প্রায় এক সাপ্তাহ আগে কালবৈশাখীর বৃষ্টি হয়েছিল ঔ পানি গুলো গুলো নিষ্কাশন না হওয়াতে এখনো জমে আছে পানি গুলো। আর এই পানি গুলো পচে নানা রোগ সৃষ্টি হচ্ছে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য নুরুল আবচার বলেন, আমাকে কোন পক্ষ বলে নাই সেই জন্য আমি এটার কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করি নাই। প্রশ্ন করা হয় আপনি এই রাস্তা দিয়ে চলাচল করেন কিনা? জবাবে তিনি বলেন, আমি প্রতিদিন অনেক বার চলাচল করি আমার পা'য়ে ও পচা পানি গুলো লেগে চুলকানি হচ্ছে। তবে আমি এটার দায় এড়াতে পারি না বলে জাবাব দেন।
সরল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রশিদ আহমেদ চৌধুরী দেশের বাহিরে থাকায় প্যানেল চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সেলিম বলেন, আমাদের ইউপি সদস্য এই বিষয়ে কি ব্যবস্থা নেয় আমি দেখি ওনি যদি না পারে তাহলে পরিষদ থেকে ব্যবস্থা নিবো পানি নিষ্কাশনের জন্য।

� পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ �







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: নাজমুল হক শ্যামল
দৈনিক নতুন সময়, গ্রীন ট্রেড পয়েন্ট, ৭ বীর উত্তম এ কে খন্দকার রোড, মহাখালী বা/এ, ঢাকা ১২১২।
ফোন: ৫৮৩১২৮৮৮, ০১৯৯৪ ৬৬৬০৮৯, ইমেইল: [email protected]
কপিরাইট © দৈনিক নতুন সময় সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | Developed By: i2soft
DMCA.com Protection Status