ই-পেপার সোমবার ১৪ নভেম্বর ২০২২
ই-পেপার |  সদস্য হোন |  পডকাস্ট |  গুগলী |  ডিসকাউন্ট শপ
শুক্রবার ২৪ মে ২০২৪ ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
আপনার অজান্তেই আপনার ছবি চলে যাচ্ছে পাত্র পাত্রী চাই গ্রুপে
স্টাফ রিপোর্টারঃ লিটন গাজী
প্রকাশ: Tuesday, 7 May, 2024, 8:27 PM
সর্বশেষ আপডেট: Saturday, 11 May, 2024, 12:23 PM

আপনার অজান্তেই আপনার ছবি চলে যাচ্ছে পাত্র পাত্রী চাই গ্রুপে

আপনার অজান্তেই আপনার ছবি চলে যাচ্ছে পাত্র পাত্রী চাই গ্রুপে

বর্তমানে দেখা যাচ্ছে বিবাহ বিচ্ছেদের হার বেশী হওয়াতে এটাকে পুঁজি করে বেশ কিছু প্রতারক সিন্ডিকেট একসাথে মিলে সারাদেশের সকল প্রান্ত থেকে ফেইসবুক গ্রুপ, ফেইসবুক পেইজ, ফেইসবুক আইডি থেকে করছে মহা প্রতারণা সেই সাথে ব্ল্যাকমেইল চাঁদাবাজি সহ নানাধরণের সাইবার ক্রাইম। 

প্রতারক সিন্ডিকেটের টার্গেট ডিপ্রেশনে থাকা মানুষগুলোর সরলতার 
সুযোগ নিয়ে প্রতারণার ফাঁদে ফেলা।

প্রথমে প্রতারক সিন্ডিক গুলো ফেইসবুক গ্রুপ গুলোর নাম দিচ্ছে "বিয়ে-শাদী পাত্র পাত্রী", "ডিভোর্স বিধবার গল্প", ডিভোর্সি বিধবার মনের কথা, ৬৪ জেলার পাত্র পাত্রীর সন্ধানে সহ নানাধরণের নাম দিয়ে গ্রুপ গুলো ক্রিয়েট করছে।

আর এসব গ্রুপে ইমোশনালি পোস্ট করতে দেখা যায়, আইডি গুলোর অধিকাংশ-ই ফেক আইডি ছেলে এবং মেয়েদের যাহা এই আইডি গুলো নিয়ন্ত্রণ করছেন প্রতারক সিন্ডিকেট গুলো। অপরাধীরা নিজেদের ফেক আইডি থেকে ফ্রেন্ডলিস্টের সকলেকে-ই ইনভাইট পাঠাচ্ছে, দেখা যায় অনেকেরই দাম্পত্য জীবনে টুকটাক ঝামেলার কারণে এসব গ্রুপে যুক্ত হচ্ছেন, যারা ডিভোর্সি কিংবা বিধবা এবং অবিবাহিত তাঁরাও যুক্ত হচ্ছেন এসব গ্রুপে, আর এভাবেই খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে এসব গ্রুপ বা পেইজের মেম্বার লাখ লাখ হয়ে যাচ্ছে। আর সেই সুযোগের অপেক্ষা-ই যেনো বসে থাকে এই গ্রুপ বা পেইজের এডমিন অপরাধীরা।

তবে এসব গ্রুপের প্রতিটি পোস্টে-ই বেশীরভাগ ভুক্তভোগীদের কমেন্ট করতে দেখা যায়, কমেন্টে গুলো হুবহুব তুলে ধরা হলো, "পোস্ট দাতা একজন প্রতারক", কেউ বা কমেন্টে লিখছে "পোস্ট দাতা চিটার" "পোস্ট দাতার ইনবক্সে গিয়ে কথা বলে দেখেছি তিনি আমার কাছে টাকা চায়", কেউ আবার কমেন্টে লিখছে "এই মেয়ে আমার টাকা মেরে দিয়েছে সে আরও অনেক ছেলের সাথে বিয়ের নাটক করে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে", আবার কেউ কমেন্ট করছে "এই ছেলেটার বউ বাচ্চা আছে গ্রামের বাড়িতে, সে শহরে জব করে তাই মিথ্যা কথা বলে বিয়ে করে গোপনে শহরে রাখতে চায়, "পোস্টদাতা খারাপ মানুষ আমার থেকে খারাপ ছবি চায় ভিডিও কলে বিশেষ কিছু দেখতে চায়"।

প্রতারক সিন্ডিকেটের হাত থেকে বাদ পড়ছে না সেনাবাহিনী, পুলিশ, অভিনেত্রী সহ সকল সরকারি বেসরকারি চাকরিজীবীরা। ফেক আইডি থেকে এসব গ্রুপের পোস্টে সেনাবাহিনী ও পুলিশের পোশাক পরিহিত ছবি দিয়ে পাত্র পাত্রী খোঁজা হতে দেখা যাচ্ছে। 

কমেন্টে বিশেষ অভিযোগ দেখা যায়, " প্রতারক সিন্ডিকেট মধ্যে কাজীর পরিচয় দিয়ে ইনবক্সে নক করে বলে তাহার হাতে অনেক বড়লোক সুন্দরী নারী এবং সুন্দর স্মার্ট ছেলে আছে, এর পরে ৮ থেকে ১০ টি সুন্দরী মেয়ে এবং ছেলেদের ছবি পাঠিয়ে কাজী পরিচয়ধারীর বিকাশ নগদ নম্বর পাঠিয়ে বলছে আগে ১ হাজার টাকা দিন ফরম ফিলাপ করতে হবে। টাকা হাতিয়ে নেওয়ার পরে সেই কাজীর আইডি থেকে ব্লক করে দেওয়া হয়, এসব প্রতারক সিন্ডিকেট গুলো কাজী বা ঘটক নামের আইডি গুলোর নিয়ন্ত্রণ করছে তাদের চক্রের সদস্য একাধিক নারী এবং পুরুষ মানুষ রয়েছে। 

এই অপরাধচক্রের অসংখ্য সদস্য রয়েছে সারাদেশে, এঁরা সারাদেশে সুন্দরী নারী এবং স্মার্ট ছেলেদের ফেইসবুক আইডি থেকে আইডি থেকে ছবি ডাউনলোড করে তাদের গ্রুপ বা পেইজে ফেক আইডি থেকে নিজের বলে চালিয়ে দিচ্ছে, আর এদিকে বিপাকে পড়ছে সেই আসল ছবি গুলোর নারী এবং পুরুষ মানুষ গুলো। 

এসব প্রতারক সিন্ডিকেটের টার্গেটে পরিণত হয়েছে সুন্দরী এক বিবাহিত নারী সাংবাদিক আঁখি আক্তার, আজ  হঠাৎ আখির হাসবেন্ড রতনের মোবাইলে ফোন আসে এক আত্মীয়র, সেই ফোন থেকে যানতে পারেন আঁখির ফেইসবুকের ছবি এখন বিয়ে-শাদী পাত্র পাত্রীর গ্রুপে পোস্ট করা হয়েছে, সেই পোস্টে লিখা আছে, "আমি জানি আপনারা আমাকে বলবেন আমি অনেক সুন্দরী, সেটা আমিও জানি। কিন্তু আমারওতো একটা ব্যক্তিগত পছন্দ আছে। পছন্দমতো পাওয়ার জন্যই এখানে"  গ্রুপের পোস্ট দেখে আঁখি আক্তার আজ ৭/৫/২০২৪ ইং সকাল ১১:৩০ টায় কাফরুল থানায় জিডি করেন। 

এবিষয়ে আঁখি আক্তার নতুন সময়কে বলেন, আমি থানায় জিডি করেছি, ডিজি নং ৫৯১ আমি এসব সাইবার অপরাধীর কঠিন থেকে কঠিন বিচার চাই, এসব পেইজ বা গ্রুপের প্রতারক চক্রের সদস্যরা অসংখ্য নারী ও পুরুষ মানুষের মান ইজ্জত নিয়ে বিজনেস করছে, এগুলো কে প্রশাসন দ্রুত আইনের আওতায় এনে কঠিন শান্তি দাবি করছি।


এবিষয়ে বাংলা চলচ্চিত্রের অভিনেত্রী রেবেকা রৌফ নতুন সময়কে বলেন, ‘এগুলা যারা করতেছে ভালো লোকেরা করতেছে না, খারাপ লোকেরাই করে শিল্পীদের বদনাম করার জন্য। আমিও এদের নামে কেস করব।'


� পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ �







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: নাজমুল হক শ্যামল
দৈনিক নতুন সময়, গ্রীন ট্রেড পয়েন্ট, ৭ বীর উত্তম এ কে খন্দকার রোড, মহাখালী বা/এ, ঢাকা ১২১২।
ফোন: ৫৮৩১২৮৮৮, ০১৯৯৪ ৬৬৬০৮৯, ইমেইল: [email protected]
কপিরাইট © দৈনিক নতুন সময় সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | Developed By: i2soft
DMCA.com Protection Status