শুক্রবার, ২১ জানুয়ারি, 2০২2
সালাহ্ উদ্দিন শোয়েব চৌধুরী
Published : Wednesday, 15 December, 2021 at 10:01 AM, Update: 15.12.2021 10:15:20 AM
মার্কিন নিষেধাজ্ঞা, র‌্যাব ও বাংলাদেশ

মার্কিন নিষেধাজ্ঞা, র‌্যাব ও বাংলাদেশ

তিনদিন আগে যুক্তরাষ্টের ট্রেজারী বিভাগ ও ষ্টেট ডিপার্টমেন্ট পুলিশের আইজি, র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) এবং এটির ক'জন অফিসারের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। আর এই নিষেধাজ্ঞার পেছনে ওরা যে কারণগুলো দেখিয়েছে সেটা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওয়ার অন টেরর কিংবা সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধের বিপক্ষে যায়।

আমাদের দেশে কেউকেউ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এই নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে কথা বলছেন। আমেরিকার সমালোচনা করছেন, এমনকি একধাপ আগ বাড়িয়ে গালমন্দও করছেন। বিনয়ের সাথেই বলবো, আমাদের অর্থনীতি কিন্তু এখনও বৈদেশিক মুদ্রা কিংবা রপ্তানী আয় আর রেমিটেন্সের উপর নির্ভরশীল। এক্ষেত্রে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার প্রতিবাদে আমরা যদি অতি বিপ্লবী কিছু করতে থাকি কিংবা যুক্তরাষ্টের সাথে সম্পর্কের আরো অবনতি হয় এমন কিছু করতে থাকি তাহলে পরিশেষে আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি যে ভয়ঙ্কর সংকটে পড়তে পারে এই সহজ কথাটা কি বুঝতে আমরা অক্ষম হয়ে গেলাম? আমাদের মনে রাখতে হবে, আমেরিকা তো কিউবা কিংবা ভেনিজুয়েলা নয় যে ওদের নিষেধাজ্ঞায় আমাদের কিছুই হবেনা। বরং আমাদের এক্ষুনি এই নিষেধাজ্ঞা উঠিয়ে নেয়ার উদ্যোগ নেয়ার পাশাপাশি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের যদি সম্পর্কে দূরত্ব তৈরী হয়ে থাকে সেটা দুর করার ব্যবস্থা নিতে হবে।

আমেরিকা কেনো হুট করে র‌্যাবের উপর নিষেধাজ্ঞা দিলো? কেনোই বা বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শকের প্রতি তাদের এই অকল্পনীয় বৈরীতা? এটা আগে বুঝতে হবে আমাদের।

বাংলাদেশে র‌্যাব গঠিত হওয়ার আগে চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসী আর অপরাধীদের তাণ্ডব চলেছে প্রায় সব জায়গায়। অপরাধীরা প্রকাশ্যেই ওদের ভয়ঙ্কর কাজকারবার চালিয়েছে যুগের পর যুগ। এদের কাছে গোটা দেশ হয়ে পড়েছিলো জিম্মি। এটা অস্বীকার করার কোনো উপায় আছে কি? র‌্যাবের সদস্যরা নিজেদের জীবন বাজী রেখে জঙ্গিবাদ আর সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়েছেন। দেশ থেকে নির্মূল করেছেন চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসী আর অপরাধীদের। জঙ্গীদের সকল নেটওয়ার্ক তছনছ করে দিয়েছেন।

র‌্যাব সদস্যদের সাহসী এবং কার্যকর ভূমিকার কারণেই বাংলাদেশ আরেকটা আফগানিস্তান, সিরিয়া, লেবানন কিংবা ইয়েমেন হয়ে যায়নি। ওনাদের সাহসিকতা আর বিচক্ষণতার কারণেই বাংলাদেশে আল কায়েদা কিংবা ইসলামিক ষ্টেট মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে পারেনি, ঘাঁটি গাড়তে পারেনি। র‌্যাব সদস্যদের এই সাহসী ভূমিকার কারণে শুধুমাত্র বাংলাদেশই জঙ্গী আর সন্ত্রাসমুক্ত হয়নি, বরং ওনাদের অবদানের কারণেই ভারতের পশ্চিমবঙ্গ এবং উত্তর পূর্ব ভারতের সাতরাজ্যে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সাথে হাত মিলিয়ে আন্তর্জাতিক জঙ্গীগ্রুপগুলো বাংলাদেশকে সন্ত্রাসের প্রশিক্ষণভূমি বানাতে পারেনি - বাংলাদেশের মাটি ব্যবহার করে ভারতে আতঙ্কবাদী অপতৎপরতা চালাতে পারেনি। র‌্যাব সদস্যদের কারণেই আল কায়েদা কিংবা ইসলামিক ষ্টেটের মতো ভয়ঙ্কর জঙ্গীগোষ্ঠী দক্ষিণ এশিয়ায় সুবিধা করতে পারেনি।

জঙ্গী আর সন্ত্রাস দমন করতে যেয়ে র‌্যাবের অনেক সদস্য শহীদ হয়েছেন - আহত হয়েছেন। ওনাদের এই বীরত্বপূর্ণ আত্মত্যাগের প্রতিদানই কি সাম্প্রতিক নিষেধাজ্ঞা?

দীর্ঘ কুড়ি বছর যাবত আমেরিকার রিপাবলিকান এবং ডেমোক্র্যাট দলের বহু নেতার সাথে আমার বন্ধুত্ব - ঘনিষ্টতা। মার্কিন সিনেট এবং কংগ্রেসে আমার বন্ধুর সংখ্যা কতো সেটা বাংলাদেশে আমাকে যারা আড়চোখে দেখেন তারাও জানেন। এই সম্পর্কের কারণেই আমি মার্কিনীদের অনেককিছুই বুঝতে পারি। আমি নিশ্চিত, ট্রেজারী বিভাগ এবং ষ্টেট ডিপার্টমেন্টের জারি করা নিষেধাজ্ঞার বিষয়টা হুট করেই হয়নি। এটার পেছনে বাংলাদেশ বিরোধী চক্র দীর্ঘ সময় ধরে অপতৎপরতা চালিয়েছে। লাখ লাখ ডলার খরচ করে ওয়াশিংটনে লবিইষ্ট নিয়োগ দিয়েছে। ওই লবিইষ্টরা মার্কিন সিনেট ও কংগ্রেসসহ ক্যাপিটল হিল, তথা হোয়াইট হাউস, ষ্টেট ডিপার্টমেন্ট, সিআইএ ইত্যাদি অফিসে প্রপাগান্ডা ম্যাটেরিয়ালস কিংবা ডশিয়ার সরবরাহ করে সংশ্লিষ্টদের বিভ্রান্ত করেছে। আমি সত্যিই হতবাক হয়ে যাচ্ছি, ওয়াশিংটনে আমাদের দূতাবাসে যারা আছেন ওনাদের কেউই কেনো এসব আঁচ করতেও পারলেন না। কেনো আমাদের গোয়েন্দা সংস্থাগুলো এবিষয়ে সরকারকে আগেভাগেই অবহিত করলো না। কেনো আমাদের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ষড়যন্ত্রকারীদের অপতৎপরতা নস্যাৎ করে দিলো না।

পুলিশের আইজি, র‌্যাব এবং এই সংস্থার কয়েকজন অফিসারের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারী করিয়েই বাংলাদেশ বিরোধী অপশক্তি বসে নেই। ওরা এবার অপচেষ্টা চালাচ্ছে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষী বাহিনীতে বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী (আর্মি, নেভি ও এয়ার ফোর্স) এবং পুলিশকে কালো তালিকাভুক্ত করাতে। এমনকি এরা বাংলাদেশের আর বেশকিছু রাজনৈতিক নেতা, ব্যবসায়ী এবং সিভিল-মিলিটারি কর্মকর্তার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারী করানোর অপচেষ্টা চালাচ্ছে। এই ভয়ঙ্কর অপশক্তিকে এক্ষুনি থামিয়ে দেয়া না গেলে, আখেরে আমরা বিশাল সংকটে পড়তে পারি। আশাকরি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নিজে এবিষয়ে উদ্যোগ নেবেন। মহান মুক্তিযুদ্ধে বিজয়ের এই সুবর্ণ জয়ন্তীতে বাংলাদেশ বিরোধী অপশক্তিকে আমাদের সবার ঐক্যবদ্ধভাবে মোকাবেলা করতেই হবে। পাশাপাশি, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাথে সৃষ্ট ভুলবোঝাবুঝি দুর করতে এক্ষুনি ব্যবস্থা নিতে হবে।

লেখক: সালাহ্ উদ্দিন শোয়েব চৌধুরী আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন জঙ্গিবাদ বিরোধী সাংবাদিক, কাউন্টার টেরোরিজম বিশেষজ্ঞ, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব এবং প্রভাবশালী ইংরেজী পত্রিকা ব্লিটজ-এর সম্পাদক।



পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত


DMCA.com Protection Status
সম্পাদক ও প্রকাশক: নাজমুল হক শ্যামল
দৈনিক নতুন সময়, ২৫/১ পল্লবী, মিরপুর ১২, ঢাকা- ১২১৬
ফোন: ৫৮৩১২৮৮৮, ০১৯৯৪ ৬৬৬০৮৯, ইমেইল: info@notunshomoy.com
Developed & Maintainance by i2soft